আজকের চালের দাম কত ২০২৪ – সকল প্রকার চালের দাম

আজকে চালের দামঃ– সকল খাদ্য সামগ্রী দামের সাথে চালের দামও বেড়েছে । বাজারে নতুন নতুন চাল আসা সত্তেও চালের দাম বেড়েছ । আগের মাসে এক বস্তা চাল দাম ছিল ২৭০০ থেকে ২৭৫০ টাকায়। তবে চলতি মাসের শুরুতে প্রতি বস্তা চালে ১৫০ থেকে ২৫০ টাকা করে বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে বাজারে ২৯ ব্যাগ ৫০ কেজি চাল পাওয়া যাচ্ছে ২৪০০ থেকে ২৯০০ টাকা। যদিও উচ্চ মানের বাসমতি চাল এখন বাজারে চড়া দামে পাওয়া যাচ্ছে।

বাজার এর অবস্থা এমন হয়েছে যে, সকল দ্রবের দাম বেড়ে গেছে । যার ফলে সাধারন মানুষ অনেক হয়রানির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে । বাজারে নতুন চালের থাকা সত্ত্বেও চালের দাম অত্তাধিক ভাবে বেড়ে যাচ্ছে । আজকে এই পোস্ট এ আপনারা যা যা জানতে পারবেন – আজকের চালের দাম কত, বাসমতি চালের দাম কত, ২৫ কেজি চালেরবস্তার দাম ২০২৪ , মিনিকেট চালের দাম, মোটা চালের দাম, ৫০ কেজি চালের বস্তার দাম ২০২৪ ।

চালের দাম বেড়ে যাওয়ার কারণ

বাংলাদেশে চালের দাম বাড়ার বেশ কিছু কারণ রয়েছে। এর একটি প্রাথমিক কারণ চালের বাজারে চাহিদা ও সরবরাহের গতিশীলতা। বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম ঘনবসতিপূর্ণ দেশ এবং চাল দেশের প্রধান খাদ্য। জনসংখ্যা বৃদ্ধি এবং খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তনের কারণে চালের চাহিদা প্রতিনিয়ত বাড়ছে। তবে চাহিদা বাড়ার সঙ্গে তাল মিলিয়ে চালের সরবরাহ ঠিক রাখতে না পারায় দাম বেড়েছে।

চালের দাম বৃদ্ধির পেছনে আরেকটি কারণ হলো কৃষিতে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব। বাংলাদেশ এমন একটি দেশ যেটি জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ, এবং ঘন ঘন বন্যা, খরা এবং অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগ ধান উৎপাদনে উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলেছে। এই আবহাওয়ার ঘটনাগুলি ফসলের ক্ষতি করতে পারে, ফলন হ্রাস করতে পারে এবং সরবরাহে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে, যা দাম বাড়িয়ে দিতে পারে।

এছাড়া জ্বালানি ও পরিবহন খরচ বেড়ে যাওয়াও চালের দাম বাড়ায় ভূমিকা রেখেছে। ধান গ্রামীণ এলাকায় জন্মায় এবং শহরাঞ্চলে তা পরিবহনের জন্য উল্লেখযোগ্য জ্বালানি ও পরিবহন খরচ প্রয়োজন। জ্বালানি ও পরিবহনের দাম বেড়ে যাওয়ায় চালের দাম বেড়ে যাওয়ায় এসব খরচ ভোক্তাদের হাতে চলে গেছে।

সকল প্রকার চালের দাম

আজকের চালের দাম কত

বাংলাদেশে কোন কিছুর দাম এক বাড়ে বেড়ে গেলে তা সহজে কমে না । ৩-৪ বছর পূর্বেও চালের দাম ওতটা বেশি ছিল না । একজন সাধারন মানুষ খুব সহজে চাইলে এক বস্তা চাল কিনতে পারত । তখনকার সময় ৫০ কেজি ভালমানের চাল ১৬০০ থেকে ১৯০০ বা ২০০০ টাকার মধ্যেই পাওয়া যেতো । বর্তমানে ভালমানের চাল বাজারে ২৫০০ টাকাতেও হাতের নাগালে পাওয়া যাচ্ছে না । ২৫০০ টাকাতে যে চাল পাওয়া তার গুনগত মান ওতটা ভাল না । ভালমানের চালের দাম ২৮০০-৩০০০ টাকা পর্যন্ত পড়ে যায় ।

৫০ কেজি বস্তা চালের দাম ২৮০০ – ২৯০০ টাকা ( ভালমানের চাল )

২৫ কেজি চালের বস্তার দাম

২৫ কেজি বস্তা চাল নিম্ন আয়ের মানুষরা বেশি কিনে থাকে । বর্তমানে ভালো মানের নাজিরশাইল চাল প্রতি কেজি ৭৩ থেকে ৮২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে, যা দুই দিন আগে দেখা যাওয়া ৭৫ টাকা থেকে ৮৫ টাকা কেজি দামের চেয়ে কিছুটা কম। নাজিরশাইল সরু চাল প্রতি বস্তা বিক্রি হচ্ছে ৩৫০০ থেকে ৩৬০০ টাকায়।পালকি ব্র্যান্ডের নাজিরশাইল চালের ২৫ কেজির বস্তার দাম মাত্র ১৯৪০ টাকা, যেখানে তাদের প্রিমিয়াম ২৫ কেজি চালের বস্তার দাম ২১৫০ টাকা।নাজিরশাইলের ৫০ কেজি চালের বস্তার দাম বেড়ে এখন বিক্রি হচ্ছে ৩১০০-৩১৫০ টাকার পরিবর্তে ৩৩০০-৩৩৫০ টাকায়।

পালকি ২৫ কেজি চাল ২১৫০ টাকা (প্রিমিয়াম)
এরফান মিনিকেট ২৫ কেজি চাল ১৬৫০ টাকা।
জহুরা মিল মিনিকেট চাল ২৫ কেজি  ১৬৪০ টাকা।
পালকি নাজিরশাইল ২৫ কেজি চাল ১৯৪০ টাকা।

৫০ কেজি চালের বস্তার দাম ২০২৪

এক সপ্তাহ আগে ৫০ কেজির বস্তায় মিহি সোনালী চালের দাম ছিল স্বাভাবিক ১৮০০-১৮৫০ টাকার পরিবর্তে ২০০০ থেকে ২০৫০ টাকা।পাইজাম চাল বর্তমানে ৫০ কেজি বস্তা প্রতি ২১০০ থেকে ২১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।বর্তমানে ব্রি-২৮ চাল প্রতি ৫০ কেজি বস্তা ২৬৫০-২৭০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে, স্বাভাবিকের চেয়ে ২৫৫০-২৬০০ টাকা। বিআর ২৯ চাল বর্তমানে প্রতি ৫০ কেজি বস্তা ২৩২০-২৩৫০ টাকার পরিবর্তে ২৪০০-২৪৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।মিনিকেট চালের ৫০ কেজির বস্তা বর্তমানে ২৭৫০-২৮০০ টাকার পরিবর্তে ২৮৫০-২৯০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
নাজিরশাইলের ৫০ কেজির চাল বর্তমানে ৩১০০-৩১৫০ টাকার পরিবর্তে ৩৩০০-৩৩৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

গুটি স্বর্ণা ৫০ কেজির বস্তা ২০০০ থেকে ২০৫০ টাকা।
পাইজাম চাল ৫০ কেজির বস্তা ২২৫০-২৩০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।
ব্রি-২৮ চাল ৫০ কেজির বস্তা ২৬৫০-২৭০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।
বিআর ২৯ চাল ৫০ কেজির বস্তা  ২৪০০-২৪৫০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।
মিনিকেট চালের ৫০ কেজির বস্তা  ২৮৫০-২৯০০ টাকা  বিক্রি হচ্ছে।
নাজিরশাইল  চালের ৫০ কেজির বস্তা  ৩৩০০-৩৩৫০ টাকা বিক্রি করা হচ্ছে।

আজকে বাসমতি চালের দাম কত

অস্বাভাবিক স্বাদ ও সুগন্ধের কারণে বাসমতি চালকে বিশ্বের সেরা চাল হিসেবে গণ্য করা হয়। তাছাড়া বাসমতি চালও একটি স্বাস্থ্যকর বিকল্প কারণ এটি শরীরের উপর কোন ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে না। ১ কেজি বাসমতি চালের দাম সাধারণত ২৫০ টাকা থেকে ৩০০ টাকা পর্যন্ত হয়। অন্যদিকে, দেশি বাসমতি চালের দাম সাধারণত ১৫০ টাকা থেকে ২০০ টাকা কেজি হয়। দেশি চালের ৫ কেজির প্যাকেটের দাম ১৪৫০ টাকা। তবে মোজ্জামেলের ৫ কেজি বাসমতি চালের দাম ৫৫০ টাকা। ফরচুন বাসমতি চাল পাওয়া যাচ্ছে প্রতি কেজি ১৩৫ টাকা এবং ৫ কেজির প্যাকেট ৬৫০ টাকায়।

১ কেজি বাসমতি চালের দাম সাধারণত ২৫০ টাকা থেকে ৩০০ টাকা
দেশি বাসমতি চালের দাম সাধারণত ১৫০ টাকা থেকে ২০০ টাকা কেজি
দেশি চালের ৫ কেজির প্যাকেটের দাম ১৪৫০ টাকা
মোজ্জামেলের ৫ কেজি বাসমতি চালের দাম ৫৫০ টাকা
ফরচুন বাসমতি চাল পাওয়া যাচ্ছে প্রতি কেজি ১৩৫ টাকা
৫ কেজির প্যাকেট ৬৫০ টাকায়।

২৯ চালের দাম ২০২৪

ব্রি-২৯ চালের দাম কেজিতে তিন থেকে চার টাকা বেড়েছে। বাজারে এখন প্রতি কেজি ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে, যেখানে আগে বিক্রি হতো ৫০ টাকায়। ব্রি-২৯ চালের ৫০ কেজির বস্তার দাম ৩ হাজার টাকা এবং ২৫ কেজির বস্তার দাম ১৬০০ টাকা। ভবিষ্যতে ব্রি-২৯ চালের দাম আরও বাড়বে বলে পূর্বাভাস দেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে বাজারে ব্রি-২৯ চালের নতুন মজুদ পাওয়া যাচ্ছে।

২৯ জাতীয় চাল বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৬২ টাকা।
বিআর ২৯ চাল ৫০ কেজির ২৪০০-২৪৫০ টাকা

মিনিকেট চালের দাম

চালের সবচেয়ে জনপ্রিয় জাতগুলির মধ্যে একটি হল মিনিকেট চাল, যা বিরিয়ানি বা পোলাও চালের মতো । বর্তমানে ১ কেজি মিনিকেট চালের দাম ৬১ থেকে ৭১ টাকা, পাতলা জাতের ৭০ থেকে ৭২ টাকা কেজি। তবে এ মাসেই কেজিতে দাম বেড়েছে ১০ টাকা। আপনি যদি প্রচুর পরিমাণে কেনার পরিকল্পনা করছেন, তাহলে ২৫ কেজি মিনিকেট চালের দাম ১৫২৫ থেকে ১৭৭৫ টাকার মধ্যে, যেখানে ৫ কেজি চালের দাম ৩০৫ থেকে ৩৫৫ টাকার মধ্যে। দুর্ভাগ্যক্রমে, অদূর ভবিষ্যতে এই চালের দাম আরও একবার বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে।

মিনিকেট জহুরা মিল ২৫ কেজি ১৬৪০ টাকা
মিনিকেট চাল ৫০ কেজির ২৮৫০-২৯০০ টাকা 

মোটা চালের দাম

বাংলাদেশে মোটা চাল বিভিন্ন জাতের যেমন গুটি, স্বর্ণা, নাজিরশাইল, এবং বিআর-২৮, বিভিন্ন দামে বিক্রি হয়। মহাখালী কাঁচাবাজারে গুটি ও স্বর্ণের দাম কেজিপ্রতি ৫৫ থেকে ৫৬ টাকা, নাজিরশাইল মোটা চালের দাম কেজিপ্রতি ৮৪ থেকে ৮৬ টাকা। মাঝারি BR-28 চাল প্রতি কেজি 60 টাকা থেকে 62 টাকায় বিক্রি হয়। গতকাল ঢাকার মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটে মোটা চাল (গুটি-স্বর্ণ) কেজি প্রতি ৪৮ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

কাটারিভোগ চালের দাম

কাটারিভোগ চাল শুধুমাত্র ভাত, পোলাও এবং সুস্বাদু বিরিয়ানি তৈরির জন্যই নয়, জর্দা, পায়েস এবং ফিরনি তৈরির জন্যও উপযুক্ত। মজার বিষয় হল, কাটারিভোগ চালের একটি অনন্য স্বাদ এবং গন্ধ রয়েছে । আপনি মাত্র ২৫০ টাকায় ১ কেজি কাটারিভোগ লম্বা দানার চাল এবং ১২০০ টাকায় ৫ কেজি কাটারিভোগ চাল পাওয়া যায় ।

১ কেজি কাটারিভোগ চাল ২৫০ টাকা
৫ কেজি  কাটারিভোগ চাল ১২০০ টাকা 

পরিশেষ

চালের চাহিদা সব সময় এক রকম থাকে । যার জন্য এর দামও সব সময় ওঠা নামা করে । আমারা আপানাদের সাথে আজকে চালের দাম কত ? তা নিয়ে আপনাদের তথ্য দেয়ার চেষ্টা করেছি । আমারা যে দাম আপনাদের সাথে শেয়ার করছি কিছু কম বেশি হতে পারে এলাকা ভিত্তিক। এক কেজি চালের দাম কত ?, ৫০ কেজি চালের দাম নিয়ে যারা অনলাইন এ সার্চ করেন তাদের জন্য আশা করি আমাদের পোস্ট টি অনেক ভাবে সাহায্য করবে । আমাদের ওয়েবসাইট এ সকল ধরনের পণ্যের বাজার দাম সম্পর্কে তথ্য দেয়া হয় ।আমাদের ওয়েবসাইট এর সাথেই থাকেবন ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top