মিয়াজাকি আমের দাম ২০২৪ । ১ কেজি মিয়াজাকি আমের দাম

মিয়াজাকি আমের দাম ২০২৪:আমাদের পৃথিবীতে অনেক মূল্যবান ফল রয়েছে ।তাদের মধ্যে মিয়াজাকি আম অন্যতম।মিয়াজাকি আমের জাতটি তার উচ্চতর স্বাদ এবং গুণমানের জন্য প্রশংসিত। এই আমের জন্ম হয় জাপানে, যে শহরে এই আমটি প্রথম পাওয়া যায় তার নাম আনুসরে মিয়াজাকি আমের নাম রাখা হয়। মিয়াজাকির আম রসালো মাংস, মিষ্টি গন্ধ এবং উজ্জ্বল কমলা রঙের জন্য মূল্যবান হয়ে থাকে।

মিয়াজাকি আমের দাম জানতে চেয়ে আপানদের মধ্যে অনেকে অনলাইনে সার্চ করে থাকেন।মিয়াজাকি আম বেশ দামী।আজকের আমারা এই পোস্টে আপনাদের জানাবোঃ মিয়াজাকি আমের দাম কত, বাংলাদেশে মিয়াজাকি আমের দাম কত, ১ কেজি মিয়াজাকি আমের দাম কত এবং মিয়াজাকি কোথায় পাওয়া যায়।

মিয়াজাকি আমের দাম

বর্তমানে তথ্য অনুযায়ী মিয়াজাকি আমের দাম অন্যান্য জাতের তুলনায় অনেক বেশি। মিয়াজাকি আমের দাম অনেক, অথচ বাংলাদেশে দেশি আম প্রতি কেজি মাত্র ৫০ টাকাতেও পাওয়া যায়। এক কেজি মিয়াজাকি আমের দাম ২ লাখ ৮০ হাজার টাকা তবে মিয়াজাকি আমের মধ্যে একটু উন্নতমানের জাতগুলির দাম ৩ লাখ থেকে ৩.৫ লাখ টাকা পর্যন্ত হতে পারে।

মিয়াজাকি আমের দাম

১ কেজি মিয়াজাকি আমের দাম ২০২৪

মিয়াজাকির আম শুধু দেখতে সুন্দরই নয়, খুব সুস্বাদুও বটে। মিয়াজাকি আমের একটি ৫০০ গ্রাম ব্যাগের দাম ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা। ১ কেজি মিয়াজাকি আমের দাম ২ লাখ ৭০ হাজার থে ৩ লাখ টাকা পর্যন্ত।এই দাম বিশ্ব বাজারে আমের চাহিদার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ।বাজারের চাহিদার উপর নির্ভর করে দাম পরিবর্তিত হতে পারে।সবসময় সঠিক দাম জানার জন্য আমাদের সাথে আপটুডেট থাকুন।

১ পিচ মিয়াজাকি আমের দাম

আকারের তারতম্যের কারণে, মিয়াজাকি আমের দাম এক হয় না। আমের দাম তাদের ওজন অনুযায়ী হয়, বড় আমের দাম সাধারণত বেশি হয়। উদাহরণস্বরূপ, ১০০ গ্রাম ওজনের এক পিচ মিয়াজাকি আমের দাম পড়বে ৭০০-৮০০ টাকা। আমের ওজন বেশি হলে দামও বেশি হবে। মিয়াজাকি ৩০০ গ্রাম ওজনের আমের দাম ২৫০০ টাকা প্রায়।

১ ডজন মিয়াজাকি আমের দাম কত

১ ডজন মিয়াজাকি আমের দাম হিসাব করার আগে আপনাকে মোট কয়টি আম পাবেন তা হিসাব করতে হবে।১ ডজনে আপনি মোট ১২ টি আম পাবেন।১৫০-২০০ গ্রাম যদি গড়ে আমাদের ওজন হয়, তাহলে ১ জজনে আপনি ১.৫ থেকে ২.২ কেজি পর্যন্ত আম পাবেন। তাতে ১ ডজন মিয়াজাকি আমের দাম ৪ লাখ থেকে ৪.৫ লাখ টাকা হয়ে যায়।

মিয়াজাকি আমের উৎপত্তি

মিয়াজাকির দক্ষিণ জাপানি প্রিফেকচার যেখানে মিয়াজাকি আমের উৎপত্তিস্থল। মিয়াজাকি প্রিফেকচার তার মনোরম আবহাওয়া, সমৃদ্ধ মাটি এবং আম সহ বিভিন্ন ধরনের ফল চাষের জন্য সুপরিচিত।

মিয়াজাকিতে আম চাষ শুরু হয় ১৯ শতকের শেষের দিকে প্রিফেকচারের কৃষি বিশেষজ্ঞরা এই এলাকায় ফল নিয়ে আসার পর। স্থানীয় কৃষকরা আম চাষ গ্রহণ করে এবং সময়ের সাথে সাথে তাদের আমের ফসলের গুণমান ও ফলন বৃদ্ধির জন্য নির্দিষ্ট পদ্ধতি তৈরি করে।

বছরের পর বছর ধরে, মিয়াজাকি আম তাদের ব্যতিক্রমী স্বাদ, গন্ধ এবং গঠনের জন্য খ্যাতি অর্জন করেছে। প্রচুর রোদ, উচ্চ আর্দ্রতা এবং আগ্নেয়গিরির মাটির অনন্য সমন্বয় এই আমগুলির স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যে অবদান রাখে। কঠোর মান নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার প্রতি প্রিফেকচারের প্রতিশ্রুতি, যেমন সেরা জাত নির্বাচন করা এবং কঠোর ফসল সংগ্রহ এবং প্যাকেজিং মান প্রয়োগ করা, মিয়াজাকি আমের সুনাম আরও বাড়িয়েছে।মিয়াজাকি আম এখন একটি মূল্যবান ফল এবং এর উচ্চ চাহিদা রয়েছে।

মিয়াজাকি আমের চারার দাম

মিয়াজাকি আমের চারার দাম বিভিন্ন কারণের উপর নির্ভর করে যেমন বিক্রেতা, অবস্থান এবং চারার বয়স/আকারের উপর নির্ভর করে পরিবর্তিত হতে পারে।তবে বাংলাদেশে মিয়াজাকি আমের চারার দাম ২০০০-৫০০০ টাকা পর্যন্ত হতে পারে।

পরিশেষ

মিয়াজাকি আমের দাম বেশি হওয়ার পিছনে কারন হল এটি বেশ সুস্বাদু সাথে ভিটামিনে ভরপুর । এই আমের একটি উপকারী গুন হল বিভিন্ন রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করে।তাছাড়া আরও অনেক উপকারী গুন আছে মিয়াজাকি আমে।আজকের পোস্টে মিয়াজাকি আমের দাম ২০২৪ সম্পর্কে আপনাদের ধারণা দিয়েছি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top